অফবিটভাইরাল

রেডিওতে আমার গান চালানোর যোগ্যতা নেই! ফের বেফাঁস মন্তব্য করে লাইমলাইটে রানু মন্ডল

২০১৮ সালের সব থেকে ভাইরাল ঘটনা হলো রানু মন্ডলের (Ranu Mondal) আত্মপ্রকাশ। সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে রানাঘাটের সাধারণ ভিখারিনী থেকে রাতারাতি সেলিব্রেটি হয়ে উঠেছিলেন তিনি। তবে প্রথম দিন থেকে আজ পর্যন্ত একই রকম ভাবে চর্চার আছেন রানু মন্ডল ( Ranu Mondal)। যদিও নিজের সুরেলা কন্ঠের জন্য তিনি রাতারাতি হয়ে উঠেছিলেন বলিউডের প্লেব্যাক সিঙ্গার । কিন্তু বারবার বেফাঁস মন্তব্যের জন্য এবং অত্যন্ত অহংকারে তিনি আবার সেই রানাঘাটের ভিখারিনী হয়ে ফিরে গেছেন।

এককথায় বলতে গেলে নিজে ভাগ্যে এবং দোষে তাঁর গানের জীবনের অধ্যায় শেষ হয়ে যায়। কিন্তু তাহলেও তাঁকে নিয়ে আলোচনা কখনো বন্ধ হয়নি। বিভিন্ন সময় ছোটখাটো প্রোগ্রামে গান গাওয়া থেকে শুরু করে ইউটিউবারদের সাথে ইন্টারভিউ ভাইরাল হতে থাকে। এভাবেই আগের বছর চর্চায় ছিলেন তিনি। সম্প্রতি তাঁর পুরনো ফ্যানরা চান রানু মন্ডল (Ranu Mondal) আবার গায়িকা হিসেবে ফিরে আসুক।

কিন্তু বছরের শুরুতে ফের নিজের বেফাঁস মন্তব্যের জন্য বিতর্কে শিকার হলেন। কিছুদিন আগে এক ইউটিউবারের নিয়ে যাওয়া খাবার ফেলে দেন রানু মন্ডল (Ranu Mondal)। সম্প্রতি সেই ইউটিউবারের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। সেখানে দেখা যায় তা্কে আবার গান করবার কথা জিজ্ঞাসা করলে রানু মন্ডল (Ranu Mondal) বলেন, “রেডিও আমার গান বানানোর যোগ্য নয় ।তাই ওরা আমার গান বাজাতে পারে না। ”

তবে এই সমস্ত উল্টোপাল্টা মন্তব্য করার পর সেই ইউটিউবারের দেওয়া খাবার হিসাবে পাউরুটি তিনি নাকে শুঁকে ফেলে দেন এবং বলেন এই সমস্ত খাবার তিনি খান না। নেটিজেনরা রানু মন্ডলের (Ranu Mondal) এইরকম আচরণকে তির্যক নজরে দেখেছেন। অনেকেই বলছেন এককালে না খেতে পাওয়া রানু মন্ডলের খাবার ফেলে দেওয়াটা একদমই উচিত হয়নি । তবে অনেকে আবার রানু মন্ডল (Ranu Mondal) এর পক্ষে কথা বলেছেন । অনেকেই বলেছেন তিনি মানসিকভাবে সুস্থ নন, এটা জানার পরও তাঁকে নিয়ে এভাবে তামাশা করা বা সমালোচনা করা উচিত নয়।

Related Articles

Back to top button