ভাইরাল

আয় খুকু আয়; বাবা-মেয়ের যুগলবন্দিতে পুরোনো দিনে ফিরলেন নেটিজেনরা, দেখুন ভিডিও

আগেকার দিনে নিজের প্রতিভা প্রকাশ করার জন্য অপেক্ষা করতে হতো টেলিভিশন রেডিও অডিশন দেওয়ার জন্য। হংসরাজ নামক একটি বাংলা সিনেমায় দর্শকেরা প্রত্যেকেই দেখেছে একটা গান গাওয়ার জন্য কতই না কষ্ট করতে হয়েছিল প্রতিভাবান শিশুটিকে। বাস্তব চিত্রটা আগেকার দিনে ঠিক এমনই ছিল। তবে সময়ের সাথে পাল্লা দিয়ে যুগ অনেকটাই বদলেছে। এখন আর মানুষ রেডিও বা টিভির অডিশনের অপেক্ষায় বসে থাকে না এখন তাদের কাছে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার মত শক্তিশালী হাতিয়ার।

‘মনে হয় বাবার মত কেউ বলে না আয় খুকু আয়’ সম্প্রতি এই গানটি গেয়ে সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছে একটি মেয়ে এবং তার বাবা। বাবা গায়ক হেমন্ত মুখোপাধ্যায়ের (Hemanta Mukhopadhyay) এবং মেয়ে শ্রাবন্তীর মজুমদারের (Srabanti Majumdar) গাওয়া লাইন গুলিকে নিজেদের মতো সুরেলা কন্ঠে গিয়ে শোনাচ্ছে। এই গানটি মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই প্রত্যেক শ্রোতাদের মনি কোঠায় স্থান করে নিয়েছে। গানটি মুক্তি পেয়েছে বেশ কয়েক দশক হয়েছে তবুও গানের মর্যাদা প্রথম দিনের মতোই একই রয়ে গেছে এখনো। মহিলা কন্ঠে যিনি গানটি গেয়েছেন তার নাম পূর্বিতা ব্যানার্জি।

সোশ্যাল মিডিয়া জনপ্রিয়তা পাওয়ার সাথে সাথে যেমন সামাজিক কটূক্তির মত ঘটনা বেড়ে চলেছে ঠিক তেমনই বেড়েছে শহরের আনাচে-কানাচে থাকা প্রতিভার বিকাশের সুযোগ। মাঝেমাঝেই কিছু ঘটনা এতটাই জনপ্রিয়তা পায় যে কোন শিশু হোক বা কোনো ব্যক্তি নিজের জীবনে প্রতিষ্ঠা পায়। শুধু সামাজিক মাধ্যমই নয় সামাজিক মাধ্যমের পাশাপাশি রিয়ালিটি শো গুলিও প্রতিভা বিকাশের দরজা খুলে দিচ্ছে। সম্প্রতি আরও একবার ভাইরাল ভিডিও দেখতে পাওয়া গেল দুইজন দুর্দান্ত সিঙ্গার কে।

লকডাউন এরপর থেকেই বেশ জনপ্রিয় হয়ে দাঁড়িয়েছে ছাদে কিংবা ঘরে কোন নাচ করে কিংবা গান করে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে দেয়া। কিংবা ঘরের মধ্যে কোন গান গেয়ে সেটা সোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে দেয়া বেশ রোজকার ঘটনা হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রত্যেকদিন প্রায় শয়ে শয়ে ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে দেখা যায়। ফেসবুকের পাশাপাশি ইউটিউব বেশকিছু জনের অর্থ উপার্জনের জায়গা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকেই সামাজিক মাধ্যমের হাত ধরে জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে পেরেছেন।

Related Articles

Back to top button