রাজ্যনিউজ

ধেয়ে আসছে কালবৈশাখী! দক্ষিনবঙ্গের একাধিক জেলায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ তুমুল বৃষ্টির পূর্বাভাস

গরমে এখন হাঁপিয়ে উঠেছেন সাধারণ মানুষ। মার্চ মাসের শুরু থেকেই ছিল প্রবল গরম। সূর্যের তেজ যেন দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে। বসন্তেও বেড়েই চলেছিল তাপমাত্রার পারদ। গত ১০ বছর ধরেই এই ভয়ংকর গরম এপ্রিল থেকেই পড়তে শুরু করেছিল।

 

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর থেকে জানানো হয়েছে যে রবিবার শহরে ও শহরতলি অঞ্চলগুলোতে বজ্র-বিদ্যুৎসহ ঝড়বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে এদিন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকবে। রবিবার সকাল থেকে আকাশ মেঘলা থাকবে। মাঝে মাঝে রোদের দেখা মিলতে পারে। কোলকাতায় রবিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকবে এবং সর্বনিম্ন ২৬ ডিগ্রি। আবহাওয়া দপ্তর থেকে দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই কালবৈশাখীর পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

 

ঝাড়খন্ডে তৈরি হওয়া ঘূর্ণাবর্তের জেরে এদিন দক্ষিণবঙ্গে ঠান্ডা হাওয়া বইবে সাথে আছে ঝড়বৃষ্টির সম্ভবনা। তাপমাত্রা খুব বেড়ে যাওয়ার কারনেই রাজ্য জুড়ে সামুদ্রিক হাওয়া বইবে‌। গত রবিবার কালবৈশাখীর জেরে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল বীরভূম জেলা। পরে বৃষ্টি হওয়ায় কিছুটা স্বস্তি দিয়েছিল। মঙ্গলবার থেকে আবারও পারদ চড়তে থাকে। তাই সপ্তাহের শেষে আসতে পারে কালবৈশাখী এমনটাই জানিয়েছেন আবহাওয়া দপ্তর।

 

বাঁকুড়া, হুগলি, দক্ষিণ ২৪ পরগণায়,কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগণা, হুগলি, হাওড়া ও নদীয়ায়, দুই মেদিনীপুর, মুর্শিদাবাদে কালবৈশাখীর সম্ভবনা রয়েছে। খুব তাড়াতাড়ি ধেয়ে আসছে চৈত্র মাসের দ্বিতীয় কালবৈশাখী। ৫০-৬০ কিমি বেগে ঝড় আসার সম্ভবনা রয়েছে। মুর্শিদাবাদ, নদীয়া, বীরভূমে শিলা বৃষ্টির সম্ভবনা রয়েছে। কোলকাতাসহ গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলোতে বেশী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এদিন সকাল থেকেই আকাশ মেঘলা ছিল। এই গরমে কিছুটা স্বস্তি আনতে পারে এই কালবৈশাখী।

 

Related Articles

Back to top button