দেশ

আবার বড় ঝাটকা! চীনের সাথে 2,900 কোটি টাকার প্রকল্প বাতিল করল কেন্দ্র

গালভান উপত্যকায় চীনা সেনারা ভারতীয় সেনাদের আক্রমণ করার পরেই ভারতের তরফ থেকে চীনকে কঠোর সতর্কতা জারি করেছিল। যা বলা হয়েছে ঠিক তা-ই শুরু করেছে ভারত। চীনকে চারদিক থেকে চাপ দেওয়ার পরিকল্পনা করছে ভারত। এরই মধ্যে, অর্থনৈতিকভাবে চীনকে কোণঠাসা করার জন্য ভারতীয় পণ্য বর্জনের আহ্বান জানানো হয়েছে। চীনকে অর্থনৈতিকভাবে চাপ দিতে কেন্দ্রীয় সরকার আরও একটি পদক্ষেপ নিয়েছে।

কেন্দ্র বিহারে একটি সেতু নির্মাণের টেন্ডার বাতিল করেছে। কারণ এই সেতুটি নির্মাণে চীনের দুটি সংস্থা জড়িত ছিল। আপনাকে জানিয়ে রাখি যে কেন্দ্র ইতিমধ্যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে বিএসএনএল এবং এমটিএমএলের মতো টেলিকম সংস্থাগুলি চাইনিজ পণ্য ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে। সেই থেকে কেন্দ্র চীনা সংস্থাগুলিকে অবকাঠামো দিয়ে আঘাত করা শুরু করেছে।

বিহার সরকারের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, গঙ্গার ওপরে সেতুটি নির্মাণের জন্য মোট চারটি সংস্থা নিয়োগ করা হয়েছিল। চারটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দুটি চীন থেকে তাই এখন কেন্দ্র এই দরপত্র বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেতুটি নির্মাণ প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছিল 2900 কোটি টাকা। এর মধ্যে রয়েছে পুরো প্রকল্প, 5.6 কিলোমিটার লম্বা ব্রিজ, পাশাপাশি রেল ওভারব্রিজ সহ অনেকগুলি ছোট ছোট সেতু অন্তর্ভুক্ত ছিল। 16 ডিসেম্বর, 2019, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অর্থনৈতিক বিষয়ক কমিটি বিহারে এই সেতুটি নির্মাণের জন্য অনুমোদন দিয়েছে।

এখনও অবধি সবকিছু ঠিকঠাক ছিল কিন্তু ভারতীয় সেনারা গালওয়ান উপত্যকায় আক্রমণ করার পরে কেন্দ্রীয় সরকার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে বাধ্য হয়েছে। গঙ্গার ওপরে মহাত্মা গান্ধী ব্রিজের সমান্তরালে এই ব্রিজটি তৈরি করা হয়েছিল। এই সেতুটি তৈরি করা হলে বৈশালী, সরণ এবং পাটনা জেলার মানুষ উপকৃত হতে পারতেন। তবে এখন এই সেতুর নির্মাণ কাজ পুরোপুরি স্থগিত করা হয়েছে। এই সেতুটি নির্মাণের পাশাপাশি আরও চারটি আন্ডারপাস,1.58 কিলোমিটার লম্বা রাস্তা, একটি ফ্লাইওভার, পাঁচটি বাস স্ট্যান্ড, 13 টি রোড জাংশন এবং চারটি ছোট ব্রিজ। পুরো প্রকল্পটি ২০২৩ সালের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা ছিল।

Back to top button