বিনোদন

কৃশ, সুপারম্যান দেখলে ঠিক আছে কিন্তু সিরিয়ালে দুটো বউ থাকলেই সমস্যা! মুখ খুললেন তৃনা সাহা

স্টার জলসার জনপ্রিয় ধারাবাহিক হলো খড়কুটো। একসময় জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা এই ধারাবাহিকের টিআরপি সাম্প্রতিককালে কমতে শুরু করেছে। ‘খড়কুটো’ যারা দেখেন তাদের বক্তব্য এই ধারাবাহিকে মাঝেমধ্যেই গুনগুনকে নিয়ে এমন অবাস্তব কিছু দেখানো হয়, যার ফলে ভক্তরা এই ধারাবাহিকের প্রতি মুখ ফিরিয়ে নেন আর তার ফল পরে টিআরপির উপর। এইবার এই সব কিছু নিয়েই মুখ খুললেন গুনগুন চরিত্রের অভিনেত্রী তৃণা সাহা(Trina Saha)।

খড়কুটো ধারাবাহিকে সাম্প্রতিককালে দেখানো হচ্ছে যে, পরিবারের সকল সদস্যের অনুপস্থিতিতে গুনগুনের ভাশুরের স্ত্রী মিষ্টি সন্তান প্রসব করেছে গুনগুনের সহায়তায়। আর এই শিশুটির সাথেই অদ্ভুত ভালোবাসার সম্পর্ক তৈরী হয়ে গেছে গুনগুনের। সে মিষ্টির সন্তানকে পরম মমতায় আগলে রাখতে চাইছে আর এই বিষয়টাই মিষ্টি এবং তার পরিবারের লোকেরা সহ্য করতে পারছে না। এই নিয়ে শুরু হয়েছে দুই জায়ের মধ্যে অশান্তি।

নেটিজেনদের একাংশ গুনগুনের এই আচরণকে অত্যাধিক বাড়াবাড়ি বলেই মনে করছেন। তাদের বক্তব্য শুধুমাত্র জন্মের সময় একটু সহায়তা করেছে বলে মায়ের থেকে সন্তানকে আলাদা করতে পারেনা গুনগুন। অনেকে আবার বলছে যে গুনগুন শৈশব থেকে মায়ের ভালোবাসা পায়নি তাই মিষ্টির মেয়েকে সে নিজের ভালোবাসা দিয়ে আগলে রাখতে চাইছেন। অন্যদিকে গুনগুন চরিত্রের অভিনেত্রী তৃণা সাহা বলছেন, তিনি এই সমস্ত কোন কিছুই ভাবনা চিন্তা করে দেখেননি, তিনি একজন অভিনেত্রী তাই পরিচালক যা বলবেন তাই তাকে শুনতে হবে।

এর আগেও গুনগুনকে নিয়ে যথেষ্ট বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে অনেকেই বলেন যে তার অভিনয় ন্যাকামো লাগে। অনেকে আবার বলেছেন যে গুনগুনের অবুঝপনা দেখে মনে হচ্ছে যেন তার ওপর বিষয়টি চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যদিও অভিনেত্রী দর্শকদের তাকে নিয়ে আলোচনা করার এই সমস্ত বিষয়টি ভীষণ ভাবে উপভোগ করেছেন। টিআরপি নিয়েও তিনি ভাবেন না, তিনি কেবল নিজের কাজটা করে মানসিক শান্তি পেতে চান।

অভিনেত্রীর মতে, বাংলা ধারাবাহিকে গল্পের সাথে বাস্তবের মিল থাকলে তার গ্রহণযোগ্যতা কমে যায়। তৃনার কথায়, মানুষ টাকা খরচ করে ‘সুপারম্যান’, ‘কৃশ’ দেখতে পারেন যেগুলো বাস্তব নয় অথচ ধারাবাহিকে দুটো বিয়ে দেখলে তাদের কাছে ধারাবাহিক হাস্যকর হয়ে যায়। তৃনা এখন টিআরপি বা অন্য কোন কিছু নিয়েই মাথা ঘামাতে চাননা, ধারাবাহিকে নিজের কাজটুকু তিনি ঠিকমতো করতে চান।

Related Articles

Back to top button