নিউজবিনোদন

পরিনতি পেল দীর্ঘদিনের সম্পর্ক! মা দূর্গাকে সাক্ষী রেখে বৈশাখীর সিঁথিতে সিঁদুর পরালেন শোভন

বিগত কিছুদিন ধরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় চর্চার কেন্দ্রে রয়েছেন শোভন-বৈশাখী (sovan-baisakhi) জুটি। তারা কখনো একসাথে ‘মম চিত্তে’র তালে নাচছেন কখনো আবার একসাথে জুটি বেঁধে কলকাতা ঘুরতে যাচ্ছেন ঘোড়ার গাড়ি চেপে। কখনো বা আবার ফুচকা খাচ্ছেন একসাথে। কখনো দেখা যাচ্ছে টুং টাং সুরে পিয়ানো বাজাচ্ছেন শোভন বাবু। তবে তাদের সম্পর্ক অবশেষে দশমীর দিন পরিণতি পেলো সিঁদুরের ছোঁয়ায়।

দশমীর দিন প্রেমিকা বৈশাখীর সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে দিলেন শোভন। সম্পর্কের এই স্বীকৃতি প্রসঙ্গে বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ স্বীকৃতির অভাব কোনদিনই ছিল না।”

পরিনতি পেল দীর্ঘদিনের সম্পর্ক! মা দূর্গাকে সাক্ষী রেখে বৈশাখীর সিঁথিতে সিঁদুর পরালেন শোভন

বিজয়া দশমীর দিন একটি টিভি চ্যানেলের দুর্গাপুজোর অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় তার প্রেমিকা বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিঁথিতে সিঁদুর দিয়ে দেন। সিঁদুর পরার পর বৈশাখী দেবী প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া হিসেবে সংবাদ মাধ্যমে জানান, “স্বীকৃতির অভাব আসলে সমাজের। সমাজ এটাও দেখেছে আমাদের মধ্যে সততার কোন অভাব নেই। আমরা দুটো প্রাণহীন সম্পর্ককে টেনে না নিয়ে গিয়ে আমরা সেটাকে শেষ করে আমাদের যেখানে আনন্দ, যেখানে শান্তি সেটাকে খুঁজে নিয়েছি। হয়তো এটা দর্শকদের কাছে নতুন অনুভূতি। কিন্তু আমার মনে হয় আমরা স্বাভাবিক জীবন যাপন করি। আপনারা স্বাভাবিক আঙ্গিকে দেখলে ভাল লাগবে।”

এই বিয়ের দৃশ্য দেখার পরে স্বাভাবিকভাবেই নেটিজেনরা কটাক্ষ করতে শুরু করেছেন। যেহেতু রত্না চট্টোপাধ্যায়ের সাথে এখন‌ও অবধি শোভন বাবুর ডিভোর্স হয়নি, অন্যদিকে বৈশাখীর সিঁথিতে শোভন বাবু সিঁদুর দিয়েছেন, তাই নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে যে হিন্দু বিবাহ আইন অনুযায়ী এই কাণ্ড ঘটানোর জন্য কোন জটিলতায় পরতে হবে না তো শোভন বাবুকে? এই প্রশ্নের সেভাবে কোনো উত্তর মেলেনি।

Related Articles

Back to top button