বিনোদন

১০ বছর মাকে হাসতে দেখিনি, সইফ-অমৃতার বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন মেয়ে সারা আলি খান

নব্বইয়ের দশকে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়েছিলেন বলিউড অভিনেতা সাইফ আলি খান (Saif Ali Khan) এবং অমৃতা সিংহ (Amrita Singh)। এককালীন প্রবল প্রেম শেষ হয়েছে তীব্র তিক্ততায়। ১৯৯১ সালে সাত পাকে বাঁধা পড়লেন দুজনে, তবে দীর্ঘ দেড় দশকের মাথায় একে অপরের থেকে দূরে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। ২০০৪ সালে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়ে তাঁদের। তবে সংবাদমাধ্যমের কাছে এই প্রথম তারকা-জুটির বড় মেয়ে সারা আলি খান (Sara Ali Khan) সেই কঠিন সময় নিয়ে মুখ খুললেন। অভিনেত্রীর মতে তাঁর বাবা এবং মা একসঙ্গে সুখে ছিল না সেই সময়। বরং বিচ্ছেদ হওয়ার পরেই তিনি দেখেছেন দুজনেই শান্তিতে রয়েছেন।

১০ বছর মাকে হাসতে দেখিনি, সইফ-অমৃতার বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন মেয়ে সারা আলি খান

অভিনেত্রী সারা আলি খান এর কথায়, ‘‘একই বাড়িতে দু’জন মানুষের সঙ্গে থাকা, যাঁরা একসঙ্গে সুখে নেই। তার পরে তাঁদের বাড়ি আলাদা হয়ে গেল, দু’জনেই নতুন করে হাসতে শুরু করলেন। তা হলে সেই দু’জন মানুষকে একসঙ্গে থাকতে বলব কেন?’’ তিনি বলেন প্রায় এক দশক তিনি মাকে হাসতে দেখেননি। তবে অভিনেতার সাথে বিচ্ছেদের পর অভিনেত্রী যথেষ্ট প্রাণোচ্ছল রয়েছেন।

১০ বছর মাকে হাসতে দেখিনি, সইফ-অমৃতার বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন মেয়ে সারা আলি খান

২০০৪ সালের পর থেকেই মেয়ে সারা আলি খান এবং ছেলে ইব্রাহিম আলী খানের (Ibrahim Ali Khan) সঙ্গে আলাদা বাড়িতে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন অমৃতা সিংহ। মায়ের সঙ্গে দুই ছেলেমেয়ে বেড়াতে গিয়েছেন বিভিন্ন জায়গায়। তিনজনের যুগলবন্দীতে ঠাসা সোশ্যাল মিডিয়ার একাউন্টগুলি। সারা আলি খান এর কথা থেকে জানা গিয়েছে অমৃতা এখন মশকরা রসিকতায় মেতে থাকেন, সব সময় নিজের ছেলে মেয়েদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালোবাসেন তিনি। তবে অভিনেতা সাইফ আলী খানের সঙ্গে থাকার সময় তিনি যেন হাসতে ভুলে গিয়েছিলেন!

১০ বছর মাকে হাসতে দেখিনি, সইফ-অমৃতার বিচ্ছেদ নিয়ে মুখ খুললেন মেয়ে সারা আলি খান

সাইফ আলী খানের সঙ্গে অমৃতার যখন বিচ্ছেদ হয় তখন অভিনেত্রী সারা আলি খানের বয়স মাত্র ৯ বছর। তারপর থেকে মায়ের কাছে মায়ের আদর্শেই ধীরে ধীরে বড় হয়ে ওঠেন অভিনেত্রী। তাই আমি তাকে ঘিরেই অভিনেত্রী সারা আলি খানের পুরো জীবন আবর্তিত। পরবর্তীতে অভিনেতা সাইফ আলি খান দ্বিতীয় বিয়ে করলেও অমৃতা সর্বদা একা থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button