বিনোদন

বৃষ্টিভেজা দিনে খোলা আকাশের নীচে তুমুল নাচ অভিনেত্রী সন্দীপ্তার, ভিডিও ভাইরাল

বৃষ্টিভেজা দিনে অভিনেত্রী সন্দীপ্তা সেনকে (Sandeepta Sen) দেখা গেল একদম অন্যরকমভাবে। গতকাল থেকে দিনভর বৃষ্টি হয়ে চলেছে দেখা নেই সূর্যি মামার। আকাশের মুখ ভার। স্যাঁতস্যাঁতে দিনে মনকে একটু ভালো করতে অভিনেত্রী সন্দীপ্তা সেন গানের তালে তালে প্রাকৃতিক সৌন্দর্য অনুভব করলেন। মনের আনন্দে খোলা আকাশের নিচে নেচে উঠলেন তিনি। অভিনেত্রী ইনস্টাগ্রামে বেশ একটিভ। ইন্সটাগ্রামের পাশাপাশি বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমেও অভিনেত্রী সক্রিয়তা চোখে পড়ে দর্শকদের।

আজ বুধবার অভিনেত্রী ইনস্টাগ্রাম একাউন্ট এ চোখ রাখলেই দেখা যাচ্ছে পর্দার রানী রাসমণি ধারাবাহিকের পরিণত মা সারদা শ্রেয়া ঘোষালের জনপ্রিয় গানের তালে তালে নাচছেন। অভিনেত্রী যে ভিডিওটি শেয়ার করে নিয়েছেন সেটিতে চোখ রাখলে দেখা যাচ্ছে অভিনেত্রীর পরনে রয়েছেন কালো সাদা রঙের একটি পোশাক, মুখে রয়েছে নো মেকআপ, চুলবাধা পনিটেল করে। গানের তালে তালে পার্ফেক্ট স্টেপে মুগ্ধ করেছেন দর্শকদের। ভিডিওটি আপলোড করার এক ঘন্টার মধ্যেই ভিউজ সংখ্যা ছাড়িয়েছে কয়েক হাজার। ইতিমধ্যেই ভিডিওটি ভালোবেসেছেন ২৫০০ জনের বেশি নেট নাগরিক।

বর্তমানে অভিনেত্রী রানী রাসমণি ধারাবাহিকে সারদা মায়ের চরিত্রে অভিনয় করার পাশাপাশি তিনি সাহায্য করছেন মানুষের মনের দুঃখ কষ্ট দূর করতে। করোনা পরিস্থিতিতে মানুষ যখন একটানা ঘরবন্দি সেই সময় রীতিমতো লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়ে চলেছে আত্মহত্যার মতো ঘটনা। সাইকোলজির স্টুডেন্ট অভিনেত্রী সন্দীপ্তা সেন তাই নিজের পড়াশোনাকে কাজে লাগিয়ে দূর করছেন মানুষের দুঃখ কষ্ট। কিছুদিন আগেই আত্মহত্যা দিবসে অভিনেত্রী এক সংবাদমাধ্যমকে বলেছিলেন, ‘‘অনেক সময় দেখা যায় যে, যে মানুষটা বার বার বলছে আমি জীবনটা শেষ করে দেব, আমার বাঁচতে ভাল লাগছে না, অধিকাংশ সময় দেখা যায় সেই মানুষটি আত্মহননের চেষ্টা করতে পারছে না। সে যখনই বলে দিচ্ছে তার ইচ্ছের কথা, তার মানেই সে মনের ভাব প্রকাশ করতে চাইছে, করতে পারছেও। আর এক ধরনের মানুষ হয়, যারা বলতে পারে না। অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা যায়, যারা বলতে পারে না বা যাদের দেখে মনেই হয়নি যে, তারা আত্মহত্যা করতে পারবে, সেই মানুষটিই এই পথ বেছে নেয়।”

এইসব ক্ষেত্রে আমরা সাধারন মানুষেরা খুব অবাক হই এবং মনে মনে ভাবতে থাকি যে কি এমন ঘটনা ঘটলো যে তাকে আত্মহত্যার মত পথ বেছে নিতে হলো! এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে অভিনেত্রী সন্দীপ্তা বলছেন, ‘‘এই প্রশ্নটা কিন্তু যারা মারা যায়, তাদের সঙ্গেই চলে যায়। উত্তর জানার উপায় থাকে না অন্যদের।”

Related Articles

Back to top button