বিনোদন

বাঘের সঙ্গে লড়াইয়ের ঘটনা ‘ভুয়ো’, ভিডিও প্রকাশ করে যোগ্য জবাব দিলেন ‘দিদি নং ১’-এর রচনা ব্যানার্জী

জি বাংলার (Zee Bangla) দিদি নাম্বার ওয়ানে (didi number 1) রচনা ব্যানার্জীর সামনে নানা সময় নানান রকম লড়াকু মহিলারা এসে তাদের জীবনের লড়াইয়ের গল্প বলে যান। যদিও এই সকল গল্পগুলি শুনে‌ অনেকেই বলেন যে, দিদি নাম্বার ওয়ান শো তে গিয়ে সকলে বানিয়ে বানিয়ে মিথ্যে কথা বলে। তবে এইবার সুন্দরবনের‌ (Sundarbans) এক লড়াকু দিদি, যিনি বাঘের সাথে লড়াই করে স্বামীর প্রাণ বাঁচিয়ে ছিলেন তাকে দেখানো হয় দিদি নাম্বার ওয়ানে। তার ভয়াবহ হাড়হিম করা গল্প শোনার পর অনেকে বলতে থাকেন এটিও বানানো, এরপরই সমালোচকদের যোগ্য জবাব দেয় জি বাংলা।

জি বাংলা তে জ্যোৎস্না শীকে তার জীবনের মর্মান্তিক ঘটনা বলতে শোনা যায়। তার জামাইকে বাঘে নিয়ে গিয়েছিল কিছু বছর আগে, এরপর তার মেয়েও ছয় মাসের নাতনিকে শ্বশুর বাড়ির লোক তাড়িয়ে দেয় এবং তারা আবার জ্যোৎস্নার বাড়িতে উঠে আসেন। অভাবের সংসার টানতে এরপর তার স্বামী মাছ কাঁকড়া ধরতে বের হন। তখনই তার স্বামীকে বাঘে ধরে, স্বামীকে বাঁচাতে নিজের জীবন বাজি রেখে ওই মহিলা বাঘের সাথে লড়াই করেন।

তার বরের উপর যখন পিছন থেকে বাঘ ঝাঁপিয়ে পড়েছিল, তখন মাকে স্মরণ করতে করতে বাঘের পিঠের উপর উঠে বসেন ওই মহিলা। এরপর বাঘের কানে আঙ্গুল ঢুকিয়ে টানতে থাকেন। বাঘ তার মহিলার স্বামীকে ছেড়ে দিলেও তার হাতটি একেবারে অকেজো হয়ে যায়। এরপর দিদি নং ওয়ানের শোতে হাজির হয়ে জ্যোৎস্না তার স্বামীর কাঁধের ও হাতের ক্ষত দেখায়। ভদ্রলোক শার্ট পড়ে থাকলেও তার হাত দুটো শরীরের সঙ্গে লেগে আছে। এই ঘটনা শোনার পর সমালোচকরা বলতে শুরু করেন এটি বানানো গল্প।

কিন্তু অন্যান্য বারের মত চুপ না থেকে এইবার জি বাংলা যোগ্য জবাব দিয়ে গোটা ভিডিও সামনে আনলো। যেখানে জ্যোৎস্না দেবী তার সারা জীবনের লড়াই তুলে ধরে শেষে বলেছেন, “মৃত্যু ছাড়া আমার আর গতি নেই!” এরপর রচনা ব্যানার্জী ও জি বাংলার তরফ থেকে তাঁকে যথাসাধ্য সাহায্য করার কথা বলা হয়। এমনকি জ্যোৎস্না দেবীর উৎসাহ বাড়িয়ে রচনা বলেন এভাবেই লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।

Related Articles

Back to top button