বিনোদন

‘বিয়েটা অবৈধ ছিল, সহবাস করেছি’, নুসরাতের মন্তব্যের পাল্টা জবাব দিলেন নিখিল জৈন

সারা স্যোশাল মিডিয়া এখন সরগরম হয়ে রয়েছে টলিউড অভিনেত্রী নুসরাতের মা হওয়ার খবরে। অনেকের মনেই প্রশ্ন জেগেছে কার সন্তানের মা হতে চলেছেন নুসরাত? এবার এই সব কিছু নিয়ে মুখ খুললেন নুসরাত নিজেই।

তিনি বলেন তার সাথে কোনোদিন নিখিল জৈনের বিয়ে হয়নি। তারা শুধুমাত্র লিভ ইন রিলেশনশিপে ছিলেন। তারপর তিনি এও বলেন তুরস্কে তাদের আইন মেনে বিয়ে হয়নি তাই দেশের আইন অনুযায়ী তাদের বিয়ে অবৈধ। অন্যদিকে তিনি এও বলেন হিন্দু মুসলিম বিয়ের ক্ষেত্রে যে বিশেষ নিয়ম মানা হয় সেটাও মানা হয়নি তাদের বিয়েতে। সুতরাং বিয়ে হয়নি তাদের।

তার এই বক্তব্যের সঙ্গে সঙ্গেই শোরগোল পড়ে যায় নেটিজেনদের মধ্যে। গেরুয়া শিবিরের সবাই একের পর এক কটাক্ষ করে চলেছেন নুসরাতকে। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী নিখিল জৈন শিকার হয়েছেন লাভ জিহাদের। হিন্দু ভোট টানতে নিখিলকে বিয়ে করেছিলেন নুসরাত তাই ভোটে জিতে এখন নিজের মত বদলে ফেলেছেন। এমনটাই দাবি গেরুয়া শিবিরের। তারা আরও বলেন মুখে অসম্প্রদায়িক প্রেমের কথা বললেও তিনি আসলে বিয়ের মতন একটা অনুষ্ঠান নিয়ে ছেলেখেলা করেছেন শুধু। তাদের কটাক্ষবাণ থেকে রেহাই পাননি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। নিখিল নুসরাতের। গ্রান্ড রিসেপশনে উপস্থিত ছিলেন তিনি। অনেকেই আবার প্রশ্ন তোলেন নিখিল নুসরাতের লিভ ইন রিলেশনশিপকে মান্যতা দেওয়ার অনুষ্ঠানে কি তাহলে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী?

এর আগেই নিখিল জানিয়েছিলেন যে তিনি নুসরাতের সাথে থাকতে চান না। গতবছর নভেম্বর মাস থেকেই তারা দু’জন আলাদা থাকছিলেন। যেহেতু তাদের আইনিভাবে বিয়ে হয়নি তাই তারা লিভ ইন সম্পর্কে থাকছিলেন বলেই ধরা যায়। তাই এই বিষয়ে আইনিভাবে বিবাহ বিচ্ছেদের প্রয়োজন নেই অ্যানালমেন্ট করে আলাদা হবে দুজন। তবে নুসরাতের বিবৃতির পর এই বিষয়ে নিখিল বলেন ‘আমি কোনোদিন মন্তব্য করব না ওনার এই অভিযোগ নিয়ে। কারন এই বিষয়টি আদালতে বিচারাধীন। কোর্টে সিভিলে স্যুট দাখিল করা রয়েছে‌ এবং আইনজীবীরা তাদের কাজ করছেন’।

Back to top button