বিনোদন

সিদ্ধার্থের সঙ্গে ডিভোর্স, বাপের বাড়ি চলে যাচ্ছে মিঠাই! আর কখনো ফিরবেনা মোদক পরিবারে

সিদ্ধার্থ দুদিন আগে ডিভোর্স পেপারে সই করে সিঙ্গাপুর পালাতে চেয়েছিল! হ্যাঁ, এমন কথা জানাজানি হতেই মাথায় রীতিমতো গোটা আকাশ ভেঙে পড়েছে মোদক পরিবারের। সিদ্ধার্থের এমন আচরণে মন ভেঙেছে দাদাই এর। শুরুর আগেই ভেস্তে গেছে মিঠাই এবং সিদ্ধার্থের হ্যাটট্রিক বিয়ের পরিকল্পনা। এর মাঝেই সমস্ত কথোপকথনের মধ্যে এসে হাজির হয়েছিলেন মিঠাইয়ের মা। মিঠাই এর সমস্ত অপমান সহ্য করতে না পেরে তিনি মিঠাইকে (Mithai) জনাই ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

কাল শনিবারে ছিল টানটান উত্তেজনা মূলক পর্ব। যেহেতু সিদ্ধার্থ ডিভোর্স পেপারে সই করে দিয়েছে তাই মিঠাই এখন আর তাঁর নাত বউ নয়, মায়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাঁকে বাড়িতে আটকে রাখতে চান না দাদাই। তাই শ্বশুরবাড়ি ছেড়েই চিরকালের মতো চলে যেতে হচ্ছে মিঠাইকে। গোটা পরিস্থিতি দেখে সিদ্ধার্থ মুখে কুলুপ এঁটেছেন। আসলে এই পরিস্থিতিতে তিনি ঠিক কী বলবেন সেটাই তিনি ভেবে উঠতে পারছেন না। সমস্ত ব্যাপারটা এইভাবে সকলের সামনে চলে আসবে এমন কখনো কল্পনাই করতে পারেনি সিদ্ধার্থ এবং মিঠাই। প্রথম থেকেই দর্শক দেখেছে বিয়ে নামক ইনস্টিটিউশনে বিশ্বাস করেনা উচ্ছেবাবু। তবে বিয়েতে অবিশ্বাসী সিদ্ধার্থ চায় যে মিঠাই তাঁর বাড়িতেই থাকুক।

চলে যাওয়ার আগে উচ্ছে বাবুর লটপট (ল্যাপটপ) এর চার্জার কোথায় কি রাখা আছে সমস্ত কিছু বুঝিয়ে দিতে চায় মিঠাই। সেই সময় সিদ্ধার্থ প্রশ্ন করে, ‘তুমি কি নিজের ইচ্ছায় চলে যেতে চাও?’ এই প্রত্যুত্তরে মিঠাই বলে, ‘মিঠাই কবে নিজের ইচ্ছায় কি করেছে?’ এমনকি নিজের বিয়েটাও যে তার ইচ্ছায় হয় নি সেটাও সব জানিয়ে দিলেন মিঠাই।

ওদিকে মিঠাইয়ের প্রতি করা অন্যায়-এর জন্য অনুশোচনায় ভুগতে শুরু করে সিদ্ধার্থ। সে তাঁর অনুশোচনা থেকেই মিঠাই এর কাছে জিজ্ঞাসা করে, ‘তোমার প্রতি অনেক অন্যায় করেছি না মিঠাই?’ তবে কোনোভাবেই নিজের উচ্ছেবাবুকে দোষ দিতে চায় না তুফানমেল। তুফানমেল তাঁর দাদাবাবু বলে, ‘তুমি নিজেকে দোষ দিও না দাদাবাবু, তুমি তো আমাকে ঠকাওনি। শুরুতেই তুমি বলে দিয়েছিলে দাদুর কথায় এই বিয়েটা তুমি করছো। আমি কিছু উপকার করেছি, তুমিও কিছু করেছো, সব শোধবোধ হয়ে গেছে’।

Related Articles

Back to top button