বিনোদন

বাংলার ‘দাউদ ইব্রাহিম’! গ্যাংস্টার হুব্বা শ্যামলের জীবনী এবার বড় পর্দায় নিয়ে আসছেন ব্রাত্য বসু

বিধানসভা নির্বাচনে দমদম থেকে জিতেছেন তিনি। শুধু বিধায়কই হননি, দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীও হয়েছেন নাট্যকার, পরিচালক ব্রাত্য বসু। শিক্ষামন্ত্রী হয়েই ঘোষণা করলেন তার নতুন ছবির। হুব্বা শ্যামলের জীবনের কাহিনী এবার পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চলেছেন ব্রাত্য বসু।

সম্প্রতি, নেপাল আন্তর্জাতিক চলচিত্র উৎসবে সেরা ফিচার ফিল্মের পুরস্কার পেয়েছে তাঁরই পরিচালনায় ছবি ‘ডিকশনারি’। ‘ডিকশনারি’ ছবিতে সম্পর্কের কথা বলেছিলেন পরিচালক। আর এবারে ব্রাত্য বসুর ছবির প্লট রাজনৈতিক। পলিটিক্যাল থ্রিলার তৈরি করবেন এবার তিনি। কিন্তু যাকে নিয়ে নতুন এই ছবি, কে তিনি? কে এই হুব্বা শ্যামল?

পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতির সাথে যারা দীর্ঘদিন ধরে যুক্ত তারা প্রায় সকলেই হুব্বা শ্যামলের নাম শুনেছেন। হুগলির দাউদ ইব্রাহিম নামে পরিচিত ছিলেন এই হুব্বা শ্যামল। খুন, অপহরণ, ড্রাগ পাচার সহ একাধিক বিষয়ে তার নামে ৩০ টিরও বেশি মামলা ছিল পুলিশের খাতায়। তিনবার গ্রেপ্তার করা হলেও প্রতিবারই জামিনে মুক্তি পেত হুব্বা শ্যামল। ৭০টা মোবাইল ফোন ব্যবহার করতো সে। এর মধ্যে ২০০৫ সালে কলকাতার সল্টলেক থেকে তাঁর অতিনাটকীয় গ্রেপ্তারের কথা অনেকেই হয়তো মনে রেখেছেন।

২০০৯ সালে লোকসভা ভোটেও দাঁড়ায় হুব্বা শ্যামল। কিন্তু শাসক দলের বিপাকে মুখে শেষ পর্যন্ত নমিনেশন প্রত্যাহার করে নেয়। ২০১১ সালে মৃত্যু হয় হুব্বা শ্যামলের। বৈদ্যবাটির খালে পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার করা হয় এই ডনের। আসন্ন এই ছবিতে হুব্বা শ্যামলের ভূমিকায় অভিনয় করবেন বাংলাদেশী অভিনেতা মোশারফ করিম। এর আগে যিনি ‘ডিকশনারি’ ছবিতেও অভিনয় করেছেন।

ব্রাত্য বসুর কথায়, এই ছবিতে তিনি বিশ্বায়নের যুগে বাংলার রাজনীতির পরিবর্তন তুলে ধরতে চান। ক্রাইমের সাথে কমেডির মিশ্রণও থাকবে এই ছবিতে তাও জানিয়েছেন পরিচালক। ইতিমধ্যেই ছবির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে।

Back to top button