বিনোদনভাইরাল

প্রসেনজিতের সঙ্গে বিয়ের পর আর সিনেমা করেননি অর্পিতা, প্রকাশ্যে মুখ খুললেন অভিনেত্রী

সম্প্রতি একসময়ের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেত্রী অর্পিতা চট্টোপাধ্যায় (Arpita Chattopadhyay) উপস্থিত হয়েছিলেন জি বাংলার জনপ্রিয় গেম শো ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’-এর মঞ্চে। দীর্ঘ সময় পরে তিনি এই শোয়ের মাধ্যমে পর্দায় দর্শকদের দেখা দিয়েছেন। স্বাভাবিকভাবেই দর্শকমহলে এই পর্ব নিয়ে কৌতূহল জন্ম নিয়েছিল।

এই শোয়ের চাবিকাঠি মূলত সঞ্চালিকা রচনা ব্যানার্জী (Rachana Banerjee) নিজেই। কর্মসূত্রে রচনা ও অর্পিতার মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রয়েছে দীর্ঘদিন ধরে। শ্যুটিং সেটে দেখা গেল তার নিশান। এই শোয়ের বিশেষত্ব বিভিন্ন খেলার ছলে প্রতিযোগীদের জীবনকাহিনী শোনা। ব্যতিক্রম ঘটেনি অর্পিতার ক্ষেত্রেও।

একসময়ের ডিভা ও অন্যতম অভিনেত্রী অর্পিতা বিয়ের পর পর্দা থেকে দীর্ঘ সময় বিরতি নিয়েছিলেন। সুপারস্টার প্রসেনজিত চট্টোপাধ্যায়ের (Prosenjit Chattopadhyay) সাথে বিয়ের পর এক লহমায় সবকিছু ছেড়ে তিনি শুধুমাত্র সংসারে মনোনিবেশ করেছিলেন। সেই নিয়ে অনেক প্রশ্ন উঠলেও তার জবাব কখনোই পাওয়া যায়নি। অবশেষে প্রথমবার ‘দিদি নাম্বার ওয়ান’-এর মঞ্চে এসে রচনার প্রশ্নের উত্তর সব জানালেন অর্পিতা। তিনি জানিয়েছেন,”২০০৩ সালে আমার বিয়ে, তারপর ২০০৫-এ ছেলে। ওর হওয়ার পর আর সময়ই পাইনি।”

সেই সময় কানাঘুষো শোনা গেছিল তাঁর এই সিদ্ধান্তের পেছনে প্রসেনজিতের হাত রয়েছে। কিন্তু অর্পিতা জানিয়েছেন তাঁর কর্মসংক্রান্ত সমস্ত সিদ্ধান্ত তাঁর একার‌ই ছিলো। অর্পিতা সোজাসাপ্টা বলেছেন,”জীবনের প্রত্যেকটা অধ্যায় কিছু না কিছু শিখিয়েছে। প্রথমে অভিনেত্রী, তারপর ঘরণী, তারপর মা। আবার ফের কাজে ফিরে আসা। উদ্যোগপতি হিসেবে দিল্লিতে নিজের প্রোডাকশন হাউস, কাজ। সব মিলিয়ে জীবন আমাকে সম্পূর্ণা হওয়ার সুযোগ দিয়েছে।”

বিভিন্ন কথার প্রসঙ্গে উঠে আসে পরিবারে প্রসেনজিৎ অর্থাৎ বুম্বাদার ভূমিকা এবং সন্তানের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক। এই কথার উত্তরে খানিকটা অভিমানী স্বরেই অর্পিতা জানান,”কাজের ব্যস্ততায় সবসময় হয়তো উপস্থিত থাকতে পারে না। তাই তৃষাণজিতের বাবা, মা, দাদু-দিদা সব ভূমিকাই আমিই পালন করি।” ব্যক্তিগত সাধারণ জীবনে বুম্বাদা কেমন জানতে চাওয়া হলে হেঁয়ালি বজায় রেখে অর্পিতা বলেন,”দিনের শেষে মানুষটা স্টার। তাই দর্শকদের এই কী খায়, বাড়িতে কী করে এই হেঁয়ালিটা বজায় থাক।”

একসময় প্রসেনজিৎ ও অর্পিতার দাম্পত্য সম্পর্কের টানাপোড়েন এসেছে শোনা গিয়েছিল। গুঞ্জন উঠেছিল মনোমালিন্যের কারণে তাঁরা দুইজন দুই শহরে পৃথকভাবে বসবাস করছেন। কিন্তু সেইসবকে মিথ্যে প্রমাণ করে অর্পিতা ও প্রসেনজিৎ আজ‌ও এত বছর পরেও এক সঙ্গে চুটিয়ে সংসার করে চলেছেন।

Related Articles

Back to top button