বিনোদন

রাজ্যজুড়ে লকডাউন, বন্ধ হচ্ছে বাংলা ধারাবাহিকের শুটিং! দুশ্চিন্তায় টলিপাড়ার কলাকুশলীরা

আবারো লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। বেশ কিছুদিনের জন্য করোনা সংক্রমণের গ্রাফ নিম্নমুখী হলেও বর্তমানে গোটা বিশ্বে ক্রমশ ভয়াবহ আকার ধারণ করছে করোনার নতুন প্রজাতি। সব মিলিয়ে আবারো বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে প্রশাসন সবকিছুই। ইতিমধ্যেই মহারাষ্ট্র ও দিল্লিতে ঘোষিত হয়েছে আংশিক লকডাউন। মহারাষ্ট্র এবং দিল্লির দেখানো পথেই হেঁটেছে পশ্চিমবঙ্গও। আজ সোমবার থেকেই শুরু হয়েছে সেই আংশিক লকডাউন। এই আংশিক লকডাউনের জেরে কার্যত দিশেহারা হয়ে পড়েছেন বাংলা টলিউড ইন্ডাস্ট্রি। জারি করা হয়েছে একাধিক বিধিনিষেধ।

নবান্ন থেকে জারি করা একগুচ্ছ বিধিনিষেধের মধ্যে উল্লেখিত রয়েছে, দশটার পর বন্ধ থাকবে শপিং মল, সন্ধ্যা সাতটা থেকে বন্ধ হয়ে যাবে লোকাল ট্রেন চলাচল, কমিয়ে দেওয়া হয়েছে লোকাল ট্রেনের সংখ্যাও। পঞ্চাশ শতাংশ যাত্রী নিয়ে রাত দশটা অবধি সিনেমা হল খোলা রাখার ঘোষণা হয়েছে। বন্ধ থাকছে সুইমিং পুল, স্পা, জিম, ওয়েলনেস সেন্টার, বিউটি পার্লার সবকিছুই। এই সব কিছুর জেরেই টলিউড ইন্ডাস্ট্রি একাধিক কলাকৌশলীরা ইতিমধ্যে পড়েছেন সমস্যার মুখে। টলিউডের অন্যতম খ্যাতনামা মেকআপ আর্টিস্ট বীথিকা বেনিয়ার কথা অনুযায়ী, আবারো দুই বছর আগের পরিস্থিতিতে ফিরে গিয়েছে সবকিছুই। সবসময়ই একটা দুশ্চিন্তা গ্রাস করে চলেছে তাদের। করোনা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই যদি সিনেমা হল এবং শুটিং বন্ধ করে দেওয়া হয় তাহলে আবারও একই পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে চলেছে টলিউড ইন্ডাস্ট্রি সে কথা ভাবলেই আঁতকে উঠছেন তিনি।

রাজ্যজুড়ে লকডাউন, বন্ধ হচ্ছে বাংলা ধারাবাহিকের শুটিং! দুশ্চিন্তায় টলিপাড়ার কলাকুশলীরা

শুধুমাত্র মেক-আপ আর্টিস্টদেরই নয়। কপালে চিন্তার ভাঁজ দেখা গিয়েছে সাউন্ড রেকর্ডিস্টদেরও। সাউন্ড রেকর্ডিস্ট আদিত্য সান্যালের কথা অনুযায়ী, ‘নো ওয়ার্ক নো পে।’ গত দুই বছর এই পরিস্থিতির জেরে রীতিমতো হিমশিম খেতে হয়েছে তাঁদের। সেই ঘটনার আবারো পুনরাবৃত্তি ঘটলে কীভাবে তাঁরা সামাল দেবেন তাই বুঝে উঠতে পারছেন না। ওদিকে লাইটম্যান অয়ন সাপুই বহুদিন ধরেই যুক্ত রয়েছেন এই ইন্ড্রাস্ট্রি সঙ্গে। তারা দীর্ঘদিন ধরে মাক্স পরে, স্যানিটাইজার ব্যবহার করেও কিছু মানুষের অবহেলা এবং অসচেতনতার জন্য আজ অনিশ্চয়তার মুখে পড়তে হয়েছে সবাইকেই।

রাজ্যজুড়ে লকডাউন, বন্ধ হচ্ছে বাংলা ধারাবাহিকের শুটিং! দুশ্চিন্তায় টলিপাড়ার কলাকুশলীরা

সহকারি পরিচালক অদিতি সান্যাল জানিয়েছেন, পরিস্থিতি তুলনামূলকভাবে ভালো হলেও তিনি আপাত মনে করছেন শুটিং পুরোটাই একটি টিম ওয়ার্ক। তাঁর সহকর্মীরা এরকম কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হবেন এটা ভেবেই তাঁর খারাপ লাগছে। তবে কাজ কমে গেলে পরিস্থিতি যে আরও সঙ্গীন হয়ে উঠতে পারে এমনই মতামত অদিতির।

Related Articles

Back to top button