বিনোদন

ইন্ডিয়ান আইডলে নতুন বিতর্ক, বিচারকদের যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন গায়ক অভিজিৎ ভট্টাচার্য

গত কয়েকমাস আগে ইন্ডিয়ান আইডল-১২ এর একটি বিশেষ পর্ব সাজানো হয়েছিল কিশোর কুমারের গান দিয়ে। এই পর্ব নিয়ে ছোট পর্দার দর্শকদের থেকে শুরু করে নেটিজেনদের মধ্যে ছড়ায় নানারকম বিতর্ক। ক্রমেই এই বিতর্ক আরও বাড়তে থাকে। দর্শকদের একাংশের মতে প্রতিযোগীরা কিশোর কুমারের গান ঠিকমত পরিবেশন করতে পারেননি। তা স্বত্তেও নেহা কক্কড়, হিমেশ রেশমিয়া এমনকি অমিত কুমার নিজেও প্রতিযোগীদের প্রশংসা করেন।

তিনি সাধারণত রিয়েলিটি শো এড়িয়ে চলেন। তবে ইন্ডিয়ান আইডল তাকে শুধুমাত্র কাজ করার জন্য ডাকেনি তাকে তার প্রাপ্য সম্মানটাও দিয়েছে। সেই কারনেই তিনি এই শো-তে এসেছেন। অভিজিৎ-এর বক্তব্য ‘আমি ওঁদের বলেছিলাম, আমি কাজ চাওয়ার কথা বলিনি, যেটা আমার প্রাপ্য সেটাই চেয়েছি মাত্র। লোকে আমার কাছে কাজ করে। আমি এমপ্লয়ার। সারা জীবনে চারটে গান গেয়েছে, এমন লোকেদের বিচারক হতে ডাকে ওরা। যারা সঙ্গীতকে কিছুই দেননি, তাদের বিচারক হিসেবে ডাকা হয়। ওরা শুধুমাত্র কর্মাশিয়াল। হয়তো হিট গান গেয়েছে, কিন্তু মিউজিককে তারা কিছুই দেয়নি।’

তিনি আরও বলেন ‘যদি আরডি বর্মন বেঁচে থাকত, ওরা তাকে হয়তো এখানে ডাকত না। ওরা আমাকে পুরস্কার দেয়নি। আমার, আরডি বর্মন ও কিশোর কুমারের মধ্যে এটাই মিল কেউই আমরা এই তিনজনকে বুঝে উঠতে পারেনি। এই নির্বোধেরা আমাকে অগ্রাহ্য করে নিজেদের প্রকাশ করেছে।

এখানেই শেষ নয় তিনি আরও অভিযোগ করেন পুরোনো গানের রিমিক্স করেন তারা তাদেরকে মাত্র ৫০০টাকা পায় তারা। এই পরিস্থিতিতে তিনি আলোচনা করেছেন অনু মালিক ও মনোজ মুনতাশিরের মতো ব্যক্তিত্বের সাথে। ‘এটা কি মজার বিষয়?’ ওদের বক্তব্য ‘দাদা, আমরা একটা বড় ভুল করেছি’। ‘যারা রিয়েলিটি শো-এর প্রতিযোগিদের ব্যবহার করে নিজেদের অ্যালবাম করেন তারি কোনোভাবেই বিচারক নন। আমি আসল বিচারক’। তার মতে তার মতন গায়কদের রিয়েলিটি শোতে অংশ নেওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ।

Back to top button